(Freelancing) সফল নারী ফ্রিল্যান্সার

ঢাকার কামরুন্নেসা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী পড়াশোনার জন্য লন্ডন যান। সেখানে লন্ডন কলেজে ফ্যাশন ডিজাইনের উপর গ্র্যাজুয়েট হোন। ১৯৯৪ সালে তিনি দেশে ফিরে আসেন আর ১৯৯৫ সালে একটি ফ্যাশন হাউস তৈরি করেন। ক্র্যাফটকে বাংলার সাথে টিকিয়ে রাখতে ও নিজের স্বপ্নকে বাস্তবে রুপ দিতে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন। লন্ডন আর্ট ইউনিভার্সিটি তাকে উপাধি দেয় 'অনোরারি ফেলোশিপ', ফাউন্ডেশন অফ অন্ট্রাপ্রিনিউয়ার উইমেন তাকে উপাধি দেয় 'অন্ট্রাপ্রিনিউয়ার উইমেন অফ দ্যা ইয়ার', ইউনেস্কোর আর্টিস্ট ফর পিস ও ডিজাইনার ফর ডেভেলপমেন্ট উপাধি পান তিনি, ইউনিএইডস তাকে গুডউইল অ্যাম্বেস্যাডর করে নেয়, মানবতায় কাজ করার জন্য তিনি ইয়োডোনা উপাধি পান। এছাড়াও আরো বেশ কিছু উপাধি পেয়েছেন তিনি। তার নামঃ বিবি রাসেল! ঢাকার একটি টেক কোম্পানি, টেকম্যানিয়ার প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও তিনি। চাঁদপুরে বেড়ে ওঠা এই মেয়ের শুরুটা হয় ঢাকা ইউনিভার্সিটি থেকে। পড়াশোনার বিষয় ছিলো সোশিওলোজি। সেখান থেকে হয়ে যান নিউজ রিপোর্টার। ২০০১ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত বেশ কিছু পত্রিকার স্টাফ কোরেসপন্ডেন্ট ছিলেন তিনি। ২০০৮ সালে দুই একজন পার্টনারকে সাথে করে সহজ একটা ব্যবসা তৈরি করেছিলেন তিনি। সেখান থেকে এটা হয়ে গিয়েছে টেকম্যানিয়া, যারা হার্ডওয়্যার ও হার্ডওয়্যারের সাথে যুক্ত বিভিন্ন যন্ত্রাদী দিয়ে থাকে ও সমস্যার সমাধান করে থাকে। ২০১৩ সালের সেরা নারী উদ্যোক্তাদের মধ্যে একজন হচ্ছেন তিনি। তার নামঃ তাসলিমা মিজি চট্রগ্রামে বড় হওয়া এই মেয়ে ২০০০ সালে ফিন্যান্স নিয়ে ভর্তি হোন ঢাকা ইউনিভার্সিটিতে। তার শখ ছিলো গানবাজনা আর মিডিয়ার সাথে কাজ করা। সেখান থেকে পড়াশোনা ট্র্যান্সফার করেন আইউবিতে। ওখান থাকতেই তিনি প্রতিষ্ঠা করেন টিম ইঞ্জিন, একটি সোশ্যাল এন্ড বিজনেস প্লাটফর্ম। হাজারটা প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েও তিনি ধরে রেখেছেন উদ্যোক্তা হওয়ার পথ। মানুষের সাথে মিশে কাজ ও ব্যবসা করার পথ টিকিয়ে রেখেছেন তিনি। ২০১৩ সালের সেরা নারী উদ্যোক্তাদের মধ্যে তিনিও একজন। তার নামঃ সামিরা জুবেরী হিমিকা এমন হাজারটা নারীর ঘটনা বলে শেষ করা যাবে না। বেশিরভাগই তাদের হাজার সমস্যা, পড়াশোনার চাপ, ব্যস্ততা আর পারিপার্শ্বিক অবস্থার সামনে ঢাল হিসেবে ধরে রেখেছিলেন নিজের স্বপ্নকে। আর সবচেয়ে মজার ব্যাপার হচ্ছে, আমার লিস্টের নারীরা কি করছেন? নো অফেন্স!

Writer:Digital Marketer Muntasir
Previous
Next Post »
Thanks for your comment