কেন আমরা নিজেরাই নিজেদেরকে বিশ্বাস করি না?

আমরা যত উপরের দিকে উঠতে থাকি, ততটা নিজেদের উপর বিশ্বাস নষ্ট হতে থাকে। ততটা নিজেদের উপর আগ্রহ কমতে থাকে আর অন্যের উপর আগ্রহ বাড়তে থাকে। যতটা কঠিনতর পথের দিকে এগুতে থাকি আমরা, ততটা নিজেদের উপর সন্দেহ বৃদ্ধি পেতে থাকে। আমরা নিজেরাও জানি না যে, আমাদের এই গৎবাঁধা জীবনের স্ট্রেস, উদ্বেগ ও কল্পনা কিন্তু আমাদের নিজেদের উপর বিশ্বাসের ল্যাকিংস ছাড়া আর কিছুই নয়! বিশ্বাস একটি আপেক্ষিক অনুভূতি। চোরকে আপনি বিশ্বাস না করলেও, তার স্ত্রী-ছেলে-মেয়ে তাকে ঠিকই বিশ্বাস করে। আর এই বিশ্বাস বা সব ধরণের অনুভূতিই আমাদের মন থেকে তৈরি হয়, যা আমাদের পুরো শরীরের মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী হাতিয়ার, যার শুরুটা হয় নিজেদের উপর বিশ্বাস করা দিয়েই! ফ্রিল্যান্সিং জীবন শুরু করার সময় আপনার আশেপাশে এমন মানুষ খুব কমই পাবেন, যে বা যারা আপনাকে বলেছে, "তোমার পাশে আছি! তুমি যাই করো!" হোক সেটা নিজের পরিবার কিংবা নিজের স্ত্রী। এমনকি কিছুটা সময় পরে, যখন আপনি লাখ টাকা খরচ করে ফেলেছেন কিন্তু সফল হতে পারেন নি, তখন তো নিজেই নিজের উপর থেকে বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছেন, ফেলছেন, ফেলবেন! আপনার জীবনের গল্প লেখার সময় মনে রাখা উচিত যে, কলমটি কিন্তু আপনিই ধরে রেখেছেন। আর এ ব্যাপারে সম্পূর্ণ নিশ্চিত আপনি, তাই নয় কি?! আপনি কেবল কলমটি ধরেছেন তা নয়, আপনি নিজ থেকে স্ক্রিপ্টটি লিখছেন। আপনার জীবনের সেই স্ক্রিপ্টটি লেখার সময় সাহসী হোন। এটি আপনারই গল্প এবং আপনার কী থাকতে পারে, আপনি কী করতে পারেন বা আপনি কী হতে পারেন তার কোনো সীমাবদ্ধতা নেই। কারণ দ্যা নাইট ইজ স্টিল ইয়াং! অন্যকে বিশ্বাস করার সর্বপ্রথম ধাপ হচ্ছে, নিজেকে বিশ্বাস করা, নিজেকে বিশ্বাস করনো যে, "আপনার দ্বারা হবে!" দস্যু বাল্মীকি যদি ২৪০০০ শ্লোকের রামায়ণ রচনা করতে পারেন, তাহলে নিজের বিশ্বাসে আপনি একজন ফ্রিল্যান্সার হতে পারবেন না?!

Writer:Digital Marketer Muntasir
Previous
Next Post »
Thanks for your comment